You are currently viewing NPS(National Pension System) কী?  জেনে নিন পেনশন পাবার নিয়ম ও যোগ্যতা ।

NPS(National Pension System) কী? জেনে নিন পেনশন পাবার নিয়ম ও যোগ্যতা ।

পেনশন এই শব্দটি শোনামাত্র আমাদের সকলের মনে আর একটি শব্দের উঁকি দেয় তা হল সরকারি কর্মচারী । আমাদের প্রায় ৯০% মানুষের মধ্যে ধারনা হয়ে আছে যে  সরকারি কর্মচারীরাই শুধু পেনশন পাবার যোগ্য কিন্তু তা সত্য নয় । ২০০৯  সাল থেকে ভারতবর্ষে বসবাসকারী ১৮-৬৫ বছরের যেকোন নাগরিক পেনশন স্কিমে সাবস্ক্রাইব করলে ৬০/৭০ বছরের পর থেকে পেনশন পাবেন ।

আপনারা নিশ্চয়ই উদগ্রীব হয়ে আছেন যে কী সেই স্কীম তা জানার জন্য ।অবশ্যই আমি আপনাদের এই পেনশন স্কীম সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব যাতে আপনাদের অবসরকালীন জীবন সুরক্ষিত থাকে ।

 

NPS কী ?

NPS পুরো অর্থ হল National Pension Scheme.

জাতীয় পেনশন প্রকল্প হল কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনস্থ অবসরকালীন সুরক্ষা যোজনা প্রকল্প।

এই প্রকল্প টি ১লা জানুয়ারী ২০০৪ সাল থেকে শুরু হয়, প্রথম অবস্থায় এই প্রকল্পের আওতায় শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীরা পরতেন,তবে সশস্ত বাহিনী ছাড়া।

২০০৯ সাল থাকে এই প্রকল্পটির আওতায় ১৮-৬৫ বছরের সকল ভারতীয় নাগরিককে আনা হয় ।

ন্যাশনাল পেনশন   প্রকল্পটির নিয়ন্ত্রন করেন PFRDA (pension fund regulatory & development authority)  ।

 

জাতীয় পেনশন প্রকল্পের জন্য কত ধরনের অ্যাকাউন্ট হয় ?

জাতীয় পেনশন প্রকল্পের জন্য দুই ধরেনের অ্যাকাউন্ট হয়। যেমন –

 

i) Tier-1

ii) Tier-2

চলুন তাহলে আমরা জেনে নেই এই দুই ধরনের অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে ।

 

Tier-1:

আপনি যদি জাতীয় পেনশন  প্রকল্প সাবক্রাইব করতে চান , তাহলে আপনাকে Tier-1 অ্যাকাউন্ট খোলা বাধ্যতামুলক।Tier-1 অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে ভারতীয় নাগরিক  এবং বয়স ১৮-৬৫ বছরের মধ্যে হতে হবে ।

এই অ্যাকাউন্টের Lock in period ৬০ বছর পর্যন্ত থাকে ।

আপনাকে অ্যাকাউন্ট সচল রাখার জন্য বছরে অন্তত একবার করে ১০০০ টাকা জমা করতে হবে ।

আপনি যদি সারকারি কর্মচারী হন, তাহলে প্রতি মাসে SIP করতে চাইলে (Basic+DA) এর ১০% বিনিয়োগ করতে হবে।আর সাধারন নাগরিক হলে মাসিক ইনকামের ১০% করে।

সর্বোচ্চ দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত আপনি ট্যাক্স বেনিফিট পাবেন , ৮০সি/৮০সিসিডি।

টায়ার-১ অ্যাকাউন্টে খোলার সময় রেজিষ্ট্রেশনের জন্য ৫০০ টাকা জমা করতে হবে ।

 

Tier-2:

এই অ্যাকাউন্ট খোলা বাধ্যতামূলক নয়।তবে আপনি খুলতে চাইলে আপনার অবশ্যই টায়ার-১ অ্যাকাউন্ট থাকতেই হবে।এই অ্যাকাউন্টটি সেভিং অ্যাকাউন্টের মতো কাজ করে ।

এই অ্যাকাউন্টে কোন লক-ইন-পিরিয়ড থাকেনা । আপনি যখন ইচ্ছা টাকা জমা দিতে পারবেন এবং তুলতেও পারবেন ।তবে এই অ্যাকাউন্টে ট্যাক্স ছাড়ের কোন সুবিধা নেই ।

এই অ্যাকাউন্ট থেকে আপনি টায়ার-১ অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন তবে টায়ার-১ থেকে টায়ার-২ তে কখন‌ও টাকা ট্রান্সফার হবে না ।

এই অ্যাকাউন্ট খোলার সময় রেজিষ্ট্রেশনের জন্য আপনাকে অন্ততঃ ১০০০টাকা জমা করতে হবে ।

আপনি টায়ার-২ অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করতে চাইলে নিন্মতম ২৫০ টাকা জমা করতে পারবেন ।

 

জাতীয় পেনশন প্রকল্প সাবস্ক্রাইব করার পদ্ধতি ?

জাতীয় পেনশন প্রকল্প সাবস্ক্রাইব করার দুটি পদ্ধতি রয়েছে, একটি অফলাইন অপরটি অনলাইন।

আমি আজ দুটি পদ্ধতি সম্পর্কেই বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করবো , আপনাদের পক্ষে যেই পদ্ধতি সুবিধাজনক বলে মনে হবে তবে সেটাই করবেন।

আলোচনার পূর্বে দূটি কথা বলি , দুটি পদ্ধতি সুরক্ষিত বরং অনলাইনে করলে আপনার খরচ অনেকটাই কম হয়ে যাবে।

অফলাইন:

অফলাইনে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে ব্যাক্তিগতভাবে পয়েন্ট অফ প্রেজেন্স (POP) তে গিয়ে,

i) Registration form

ii) Identity proof

iii) Address Proof

iv) Age Proof

v) KYC

এই সমস্ত কাগজগুলি আপনাকে POP তে গিয়ে জমা করতে হবে ।

 

অনলাইনঃ

অনলাইনে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে enps.nsdl.com অথবা enps.kfintech.com  এই দুই ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনি NPS অ্যাকাউন্ট টি খুলতে পারবেন।

NPS অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য NSDL এবং KARVY এই দুটি সার্ভিস প্রোভাইডার আছে ।

এছাড়া ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং এবং NPS অ্যাপের মাধ্যামেও NPS  অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আবেদন করতে পারবেন ।

 

দুটি পদ্ধতিতেই আপনার PRAN (Permanent retirement  account number) পোস্ট আফিসের মাধ্যমে আপনার বাড়িতে পৌঁছে যাবে ।

 

জাতীয় পেনশন প্রকল্পে জমাকৃত রাশি কোথায় বিনিয়োগ হয় ?

আপনি NPS অ্যাকাউন্টে যে টাকা জমা করেন তা বিনিয়োগ হয় E.C.G.A তে ।

হতবাক হয়ে গেলেন বুঝি ? ECGA  আবার কী ?

হয়তো ভাবছেন, যে লিখেছেন সে বুঝি পাগল হয়ে গেছে ।

থাক আর হেঁয়ালি না করে আসল বিষয়টি আলোচনা করা যাক।

জাতীয় পেনশন প্রকল্পে আপনার জমাকৃত রাশি , ফান্ড ম্যানেজার দ্বারা এক্যুইটি ,কপোরেট বন্ড , সরকারি সিকিউরিটি এবং অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট প্রভৃতিতে বিনিয়োগ হয় ।

EQUITY  (E)

Corporate Bond (C)

Govt. Securities   (G)

Alternative Investment (A)

 

NPS ফান্ডে বিনিয়োগের জন্য আপনি Active এবং Passive  এই দুটি পদ্ধতির মধ্যে আপনার জন্য কোনটি সুবিধাজনক তা পছন্দ করতে পারবেন । আপনার বয়স এবং রিস্ক নেবার ক্ষমতার ওপর নির্ভর করে বিনিয়োগ পদ্ধতি বাছাই করতে হবে ।

আমি খুব সহজ সরলভাবে ACTIVE এবং PASSIVE পদ্ধতি সম্পর্কে আলোচনা করছি ,যা পড়ে আপনারা সহজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন ।

 

Active Choose:

এই পদ্ধতিতে আপনি নিজেই ঠিক করতে পারবেন ECGA এর মধ্যে কোন খাতে কত বিনিয়োগ করবেন , তবে  এক্যুইটিতে সর্বোচ্চ ৭৫% পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে পারবেন ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত।বাকি ২৫% বাকিগুলোর মধ্যে অথবা যেকোন একটির মধ্যে বিনিয়োগ করতে পারবেন ।

অ্যাক্টিভ চয়েসে রিস্ক যেমন থাকে ঠিক তেমনি রিটার্নের সম্ভাবনাও অনেক বেশি থাকে তবে বয়স ৩৫ বছরে নিচে হলে অ্যাক্টিভ চয়েস উপযুক্ত ।

 

AUTO choose :

এই পদ্ধতি সিলেক্ট করলে আপনাকে কিছু করতে হবে না , জাতীয় পেনশন প্রকল্পের যে ফান্ড ম্যানেজার থাকবেন সেই আপনার ফান্ড ম্যানেজ করবেন।auto choose য়েও আবার রিস্ক এবং বয়েসের ওপর নির্ভর করে তিনটি পদ্ধতি রয়েছে –

 

i) Aggressive Life Fund :

এই ফান্ড ৭৫% ইক্যুইটিতে, কোর্পোরেট ঋনে ১০% এবং সরকারী সিকিউরিটি১৫% বিনিয়োগ করে।

 

ii) Moderate Life Cycle Fund :

এই ফান্ড ৫০% ইক্যুইটিতে, কর্পোরেট ঋন ৩০% এবং সরকারি সিকিউরিটিজ ২০%  করে বিনিয়োগ করে ।

 

iii) Conservative Life Fund :

এই ফান্ড ২৫% ইক্যুইটিতে, কর্পোরেট ঋন ৪৫%, সরকারী সিকিরিউটিজ ৩০% করে বিনিয়োগ করে ।

আরো পড়ুন IPO কী ?কীভাবে আপনি আইপিওতে বিনিয়োগ করবেন ।

 

NPS টাকা রাখার সুবিধাঃ

১) ফান্ডটি পরিচালিত করতে খুব কম খরচ হয় ।

2)  ট্যাক্স ছাড়ের সুবিধা থাকে ।

৩)প্রফেশনাল ফান্ড ম্যানেজার দ্বারা পরিচালিত হয় ।

৪) আকর্ষনীয় সুদের হার ।

৫)PFRDA দ্বারা নিয়ন্ত্রন হয় ।

 

NPS টাকা রাখার অসুবিধাঃ

১) বাজারগত ঝুঁকি থাকে ।

২) NPS ম্যাচুরিটির ওপর ট্যাক্স দিতে হয় ।

৩) অন্তত ৪০% পেনশন নেওয়া বাধ্যাতামূলক ।

৪) ৬০ বছর পর্যন্ত Lock in Perod থাকে ।

 

আরো পড়ুন কীভাবে শেয়ার ব্যাবসায় লাভবান হবেন ? আমার মতে সেরা 30টি বিনিয়োগ পরামর্শ ।

 

জাতীয় পেনশন প্রকল্প সংক্রান্ত প্রশ্নোত্তরঃ

১) কারা NPS অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে ?

উত্তরঃ ১৮-৬৫ বছর বয়সী ভারতের যেকোন নাগরিক ( বাসিন্দা বা অনাবাসী) ।

 

২) আমি কি একাধিক NPS আকাউন্ট খুলতে পারি ?

উত্তরঃ না ।

 

৩) আমি কি জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট খুলতে পারি ?

উত্তরঃ না ।

 

৪) PRAN নাম্বার কী ?

উত্তরঃ PRAN পুরো অর্থ হল Permanent account number । যা দিয়ে আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট ট্র্যাক করতে পারবেন ।

 

৫) TPIN কী ?

উত্তরঃ টেলিফোনিক পিন ।আপনি NPS কাস্টমার কেয়ারে ফোন করে কিছু জানতে চাইলে ,আপনার ডিটেলস জানার জন্য CRA(Central record keeping agency) থেকে আপনার জন্য একটি ৪ সংখ্যার পিন নির্দিষ্ট করা আছে , যা দিয়ে আপনার অ্যাকাউন্ট চেক করতে ও ভেরিফাই করতে পারবেন ।

 

৬) IPIN কী ?

উত্তরঃ IPIN পুরো অর্থ হল ইন্টারনেট পার্সোনাল আইডেন্টিফিকেশন নম্বর ।IPIN হল NPS তে লগইন করার পাসওয়ার্ড ।

OTP জেনারেট করে যখন তখন IPIN পরিবর্তন করতে পারবেন ।

 

৭) NPS অ্যাকাউন্টে জমাকৃত রাশি সম্পূর্ণ তোলা যাবে ?

উত্তরঃ ৬০ বছর পর আপনার জমাকৃত রাশির পরিমান যদি ২ লাখ টাকা কিংবা তার কম হয় তাহলে আপনি চাইলে পুরো টাকা একেবারে তুলে নিতে পারেন । ২লাখ টাকার বেশি হলে ৬০% টাকা একেবারে তুলতে পারবেন এবং ৪০% টাকা পেনশন নিতে হবে ।

 

৮) ৬০ বছর পর আমি যদি আমার জমাকৃত রাশি না ওঠাতে চাই তাহলে কি করনীয় ?

উওর: রাখা যাবে তবে তার জন্য পোর্টালে গিয়ে ডিফার রিকোয়েস্ট পাঠাতে হবে ।যা ৭০ বছর বয়স পর্যন্ত করা যাবে ।

 

৯)EPF, PPF থাকলে কি NPS করা যাবে ?

উওর: হ্যাঁ, করা যাবে ।

 

১০)পেনশন শুরু করার জন্য কি করতে হবে?

উওর: Retirement হবার ১৮০ দিন আগে NSDL/KARVEY পোর্টালে গিয়ে claim এর জন্য রিকোয়েস্ট পাঠাতে হবে,তারপর ওনারা claim Id , ইমেইল এবং ম্যাসেজ করে দেবে।

এরপর enps এ লগইন করে withdrawal রিকোয়েস্ট পাঠাতে হবে। ওই রিকোয়েস্টে কত শতাংশ annuity রাখবেন ,কোন annunity provider থেকে annuity নেবেন এইসব পছন্দ করে সাবমিট করতে হবে।

 

১১) NPS অ্যাকাউন্ট অনলাইনে খুলতে চাইলে কি কি ডকুমেন্টস সাবমিট করতে হবে ?

উওর: প্যান কার্ড, ক্যানসেল চেক, সিগনেচার, ছবি প্রত্যেকটি ডকুমেন্ট ১এমবি মধ্যে করে আপলোড করতে হবে।

 

১২) অনলাইনে  NPS অ্যাকাউন্ট খোলার ওয়েবসাইট দুটোর নাম কী কী ?

উওর: enps.nsdl.com,   enps.kfintech.com

 

১৩) TIN কী ?

উওর: ট্যাক্স ইডেন্টিফিকেশন নম্বর (প্যান কার্ড)।

 

১৪) D remit অর্থ কী?

উওর: Direct remittance। এই অপশন সিলেক্ট করলে সেই দিনের NAV পাবেন ।

 

১৫) PRAN  কার্ড হারিয়ে গেলে কি করবেন?

উওর: Password create করে লগইন করুন , তারপর PRAN এর জন্য আবেদন করুন ।

 

১৬) কোন কোন কোম্পানি জাতীয় পেনশন প্রকল্পে পেনশন প্রদান করেন ?

উত্তরঃ i) Life Insurance Corporation of India

ii)SBI life Insurance Co. Ltd

iii) ICICI prudential Life Insurance Co. Ltd.

iv) HDFC Standard Life Insurance Co. Ltd.

v) Bajaj Allianz Life Insurance Co Ltd.

vi)Reliance Life Insurance Co. Ltd.

vii) Star Union Dai Ichi Life Insurance Co Ltd.

 

১৭)পেনশন নেবার সময় কোন অপশনটি পছন্দ করা উচিত ?

উত্তরঃ Annuity For Life With A Provision Of 100% of the Annuity Payable To Spouse During His/Her Lifetime on Death Of Annuitant.The Initial Investment Corpus Will Be Returned On The Death Of Last Survivor.

 

১৮। NPS বিনিয়োগ করলে ঝুঁকি কতটা এই স্কিমে ?

উত্তরঃ পেনশন ফান্ড রেগুলেটারি অ্যান্ড ডেফেলপমেন্ট অথরিটি (PFRDA) ১৫ ই জুলাই ২০২২ থেকে নতুন নিয়ম আনছে, পেনশন ফান্ডে ঝুঁকির বিষয়ে বিনিয়োগকারীদের জানাতে হবে। কোন ব্যাক্তি এই ফান্ডে বিনিয়োগ করলে সর্বোচ্চ কত টাকা পেতে পারেন তা বলতে হবে আমানতকারীকে।প্রতি ১৫ দিন অন্তর পেনশন তহবিলের সব স্কিমের ঝুঁকির বিষয়ে জানাতে হবে ওয়েবসাইটএ।বিনিয়গকারীদের বিনিয়োগ সংক্রান্ত সচেতনতা তৈরি করতে এই উদ্যেগ নিয়েছে সরকার ।

জাতীয় পেনশন প্রকল্প সম্পর্কে আজকের অ্যাটিক্যালে সমস্ত বিষয় আলোচনা করা হয়েছে, আশা করছি এই অ্যাটিক্যালটি পড়লে NPS সম্পর্কিত সমস্ত প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন । যদি কোন বিষয় সম্পর্কে এখনও কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে কমেন্ট করে অবশ্যই জানাবেন ।

যদি অ্যাটিক্যালটি সত্যি ভালো লেগে থাকে, তাহলে অবশ্যই আটিক্যালটি শেয়ার করতে ভুলবেননা ।

This Post Has 7 Comments

  1. Biplab Gayen

    Kono central govt. Employee jar ar matro 5 bachar chakri ache arthat tini amni tei 60 bachor boyoser por pension paben, tini jodi tax save korar jony NPS account open koren tahole 60 bachor boyese ese sarkari chakrir pension pete kono asubidha hobe na to?

    1. Pritam Saha

      কোন রকম আসুবিধা হবে না ।

Leave a Reply