You are currently viewing শেয়ার বাজারের সহজ পাঠ

শেয়ার বাজারের সহজ পাঠ

শেয়ার বাজার কি ?

শেয়ার বাজার হল এমন একটি  জায়গা যেখানে কোন ব্যাবসার শেয়ার অথাৎ অংশীদারী কিনতে পাওয়া যায়  যে বাজারে , সেই বাজারকে শেয়ার বাজার বলে ।

শেয়ার বাজার সাধারন ভাবে এমনি বাজারে মত নয় , এই বাজার অর্থাৎ শেয়ার কেনাবেচা যেখান থেকে হয় অর্থাৎ যারা করে তাদের ব্রোকার বলে । ব্রোকার হতে হলে S.E.B.I (Securities and Exchange Board of India) দ্বারা নথিভুক্ত হতে হয় ।

সেই সমস্ত শেয়ার কেনাবেচা হয় যেগুলো NSE ( National Stock Exchange) ও  BSE (Bombay stock Exchange) দ্বারা নথিভুক্ত । NSE BSE  হল দুটো প্লাটফর্ম যেখানে বিভিন্নও কোম্পানির শেয়ারগুলো নথিভুক্ত থাকে ।

শেয়ার ব্যাবসা শুরু করার পদ্ধতি

আপনি যদি শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করতে চান তাহলে আপনাকে SEBI  দ্বারা নথিভুক্ত ব্রোকারের কাছে গিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে । ব্রোকার আপনাকে একটি DEMAT ও TRADING  অ্যাকাউন্ট খুলে দেবে । DEMAT ও TRADING  অ্যাকাউন্ট ব্যাংক কিংবা ব্রোকার দুই জায়গায় খুলতে পারবেন ।

আজই আপনার ফ্রি ডিম্যাট অ্যাকাউন্ট ওপেন করুন – https://tinyurl.com/y38db6k9

ব্রোকার কত প্রকার

ব্রোকার দুই প্রকার হয় ডিসকাউন্ট ব্রোকার ও রেগুলার ব্রোকার । ডিসকাউন্ট ব্রোকার হল সেই সমস্ত ব্রোকার যাদের অনলাইনে প্লাটফরম রয়েছে এছাড়াও এদের ব্রোকারেজ চার্জ অনেকটাই কম । অন্যদিকে  রেগুলার ব্রোকার আপনার এলাকার আশেপাশে তাদের অফিস থাকবে , সেখানে গিয়ে আপনাকে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে । DEMAT ও TRADING  অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে গেলে আপনি শেয়ার কেনাবেচা করতে পারবেন ।

ব্রোকারের কাছে খাতা খোলার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

ব্রোকার নির্বাচন করার পর অ্যাকাউন্ট ওপেন করার জন্য কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্তের প্রয়োজন হবে , সেগুলো হল ঃ-

১) প্যান কার্ড

২) আধার কার্ড

৩) ইমেল অ্যাড্রেস

8) ফোন নম্বর

৫) সই করুন CLINT MEMBER AGGREMENT

৬) CROSSED A/C PAYEE CHEQUE BLANK দিন

এইসব জমা করার মাধ্যমে আপনার CLINT কোড খুলে যাবে ।

DEMAT অ্যাকাউন্ট কি ?

আপনি CLIENT কোডের মাধ্যমে যখন শেয়ার কিনবেন, সেটি যখন একদিনের বেশী হবে তখন সেটি জমা থাকবে DEMAT অ্যাকাউন্টে । DEMAT অ্যাকাউন্ট হল শেয়ার এর GARAGE  ঘর , আপনি যা কিনবেন তা এখানে জমা হবে ।

DEMAT অ্যাকাউন্ট নজরদারি করে থাকে NSDL ও CDSL. ব্রোকাররা যেমন SEBI নিয়ন্ত্রিত ঠিক তেমনি NSDL (National Securities Depository Limited) ও CDSL (Central Depository Service Limited)  হল ডিম্যাটের এক্সচেঞ্জ ।

TRADING অ্যাকাউন্ট কি ?

আপনি CLINT  কোডের মাধ্যমে যখন  কোন শেয়ার একদিনের জন্য কেনাবেচা করবেন , তখন সেটি থাকবে TRADING অ্যাকাউন্ট এ থাকবে। আবার অন্যদিকে শেয়ার কেনাবেচার মধ্যমণি হিসাবে কাজ করে  TRADING  অ্যাকাউন্ট অর্থাৎ TRADING অ্যাকাউন্ট , SAVING/CURRENT  অ্যাকাউন্ট ও ডিম্যাট অ্যাকাউন্ট এর সংযোগকারী হিসাবে কাজ করে ।

শেয়ার ব্যাবসায় বিনিয়োগের প্রাথমিক শিক্ষা

কোন কাজে সফলতার মূলমন্ত্রই হল অভিজ্ঞতা ।এই অভিজ্ঞতা আসে কাজের মাধ্যমে । শেয়ার ব্যাবসায়ে কাজ বলতে শেয়ার কেনাবেচাকে বোঝায় । শেয়ার কেনাবেচাতে সঠিক নিয়ম জানা না থাকলে লোকসানের মুখোমুখি হতে হয় । এখন বিষয় হল সেই অভিজ্ঞতা কিভাবে আপনি অর্জন করবেন? প্রথমেই বলি কিছু বই পড়ার মাধ্যমে আপনি শেয়ার ব্যাবসা সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনার পাশাপাশি শেয়ার কেনাবেচাতে অভিজ্ঞ হয়ে উঠবেন ।

প্রথমেই আপনি বেঞ্জামিন গ্রাহামের  INTELLIGENT INVESTOR দিয়ে শুরু করতে পারবেন । WARREN BUFFET  সকল নিবেশককে এই বইটি পড়ার কথা বলেছেন ।

দ্বিতীয়ত, আপনি পিটার লিনচ এর লেখা ONE UP ON WALL STREET দিয়ে শুরু করুন । INTELLIGENT INVESTOR  এর থেকেও সহজ করে লেখা। এই বই আপনার দৈনন্দিন জীবনে ব্যাবহার করা সামগ্রি থেকে ভাল COMPANY এর প্রোডাক্টের শেয়ারে কিভাবে বিনিয়োগ করা যায় , সেই সম্পর্কে বর্ণনা করা আছে ।

ইংরেজিতে যাদের সমস্যা রয়েছে তারা SIDDHARTHA CHATTERJEE  লেখা বই দিয়ে শুরু করতে পারেন । উনার লেখা বই সে আর … অমনিবাস বইটি পড়ে শেয়ার বাজারে কেনাবেচা শুরু করতে পারবেন ।এই বইয়ে বাজার সম্পর্কে সামগ্রিক প্রাথমিক আলোচনা রয়েছে ।

শেয়ার  ব্যাবসা শেখার বিভিন্ন মাধ্যম

আজকের দিনে দাঁড়িয়ে শেয়ার বাজার শেখার জন্য তেমন কোন অর্থের প্রয়োজন হয় না । বর্তমানে বিভিন্ন ওপেন সোর্স রয়েছে যা থেকে শেয়ার বাজার সম্পর্কে যাবতীয় তথ্যের ভাণ্ডার রয়েছে । আপনি TWITTER এ গিয়ে আপনার একটি TWITTER  অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন । আমি twitter এ বিভিন্ন investor যাহারা বহুদিন ধরে মার্কেট এর সাথে জড়িত তাদের ফলো করি , তাহারা তাদের অভিজ্ঞতা প্রতিদিন টুইট করেন এবং শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন সোর্সগুলি তাহারা শেয়ার করেন ।

এছাড়া আরো ফ্রী ওপেন সোর্সগুলির মধ্যে বিভিন্ন ব্লগারের লেখা ব্লগ, যেখানে অভিজ্ঞ নিবেশকরা তাদের অভিজ্ঞতা ও শেয়ার বাজার এর নিবিশের যাবতীয় খুঁটিনাটি আলোচনা করে থাকেন । এইসব আলোচনা খুবই তাৎপর্যপূর্ণ । আপনি এইগুলো নিয়মিতভাবে এইসব পড়াশুনার পাশাপাশি নিবিশের জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবেন ।

তৃতীয়, ওপেন সোর্স হিসাবে আপনি ইউটিউব ব্যাবহার করতে পারেন । ইউটিউবে স্টক সিলেকশন এর নিয়ম ও স্টক সম্পর্কিত বিভিন্ন আলোচনা করে থাকেন যা আপনাকে সমৃদ্ধ ও অভিজ্ঞ করে তুলবে ।

বিনিয়োগের সাবধানতা ও নিরাপদ পদ্ধতি

আমদের উপার্জিত অর্থ বিনিয়োগের সময় অবশ্যই মাথায় রাখতে  হবে তা জেনো নিরাপদ থাকে । নিরাপদ রাখার সঠিক পদ্ধতি হল অর্থকে বিভিন্ন জায়গায় ( স্টক, গোল্ড, ইনডেক্স ফান্ড, বন্ড প্রভৃতি) বিনিয়োগ করা ।

প্রথম বিনিয়োগকারী হিসাবে আপনি ইনডেক্স ফান্ড (index fund )  এ বিনিয়োগ করতে পারেন । যেখানে আপনার অর্থের  রিস্ক অনেকটাই কম আবার দীর্ঘমেয়াদির  ক্ষেত্রে  return এর পরিমাণটাও অনেকটাই বেশি ।

আরো পড়ুন প্রথম নিবেষক হিসাবে stock market এ stock কিভাবে নির্বাচন করবেন ?

আজই আপনার ফ্রি ডিম্যাট অ্যাকাউন্ট ওপেন করুন – https://tinyurl.com/y38db6k9

আজকের ব্লগ সম্পর্কিত কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানান ।ব্লগটি পড়ে আপনাদের যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার করে সকলকে পড়ার সুযোগ করে দিন ।

This Post Has 12 Comments

Leave a Reply